//শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ছে, চলছে পর্যবেক্ষণঃডা. দিপি মনি

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ছে, চলছে পর্যবেক্ষণঃডা. দিপি মনি



করোনা সংক্রমণ বাড়তে থাকলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার তারিখ পেছাতে পারে পারে বলে জানিয়েছেন মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনি।

গতকাল-১২/০৩/২০২১ শুক্রবার বিকালে মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট কতৃক মুজিববর্ষ উপলক্ষে আয়োজিত ব্রিফিং শেষে তিনি সাংবাদিকদের প্রশ্নে এমন তথ্য দেন।
ডা. দিপু মনি বলেন,  শিক্ষক,ছাত্রছাত্রী , অভিভাবকদের নিরাপত্তা নিয়ে শংকা থাকলে খোলা হবেনা নির্ধারিত সময়ে। করোনা সংক্রমণ উর্ধ্বগতি থাকলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্তের তারিখ পেছাতে পারে বলে তিনি বলেন এ বিষয়ে আমরা সার্বক্ষণিক পর্যালোচনা করছি। যদি গত কয়েকদিনের মতো ক্রমান্বয়ে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়তে থাকে তাহলে নির্ধারিত সময় অর্থাৎ ৩০ মার্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা সম্ভব হবে না।

এর আগে ২৭ ফেব্রুয়ারি শিক্ষামন্ত্রী আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠকে বলেন, আগামী ৩০ মার্চ দেশের সব স্কুল-কলেজ খুলে দেওয়া হবে।এবং
পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান ২৪ মে থেকে শুরু হবে এবং হল খুলবে ১৭ মে। এর আগে সব ধরনের পাঠদান ও পরীক্ষা বন্ধ থাকবে।

১৭ মে এর মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব আবাসিক শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও কর্মচারীদের করোনা টিকা প্রয়োগ করা হবে।

গত বছর ১৭ মার্চ ২০২০ থেকে বন্ধ রয়েছে দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। প্রথম ধাপে ৩১ মার্চ পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করা হলেও পরিস্থিতি বিবেচনায় তা ধাপে ধাপে বাড়িয়ে অবশেষে ৩০ মার্চ স্কুল-কলেজ খোলার তারিখ ঘোষণা করলেও এখন তা প্রশ্নবিদ্ধ অবস্থায় আছে, তবে খুব শিগ্রহি শিক্ষামন্ত্রণালয় থেকে সিদ্ধান্ত জানানো হবে। গাইডলাইন অনুসরণ করে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার প্রস্তুতি নিতে বলা হয়।

এদিকে দিনের পর দিন মাসের পর মাস বছরের বেশি সময় শিক্ষার্থীরা বদ্ধ ঘরে থাকতে থাকতে মানসিক ভাবে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে এবং মানসিক/ শারীরিক বৃদ্ধিতে বাধা পাচ্ছে বলে ধারণা বিশ্লেষকদের।



সকল সংবাদ সবার আগে পেতে ডেইলিবিডিটাইমকে সাবস্ক্রাইব করে রাকতে পারেন, যাতে করে সংবাদ প্রচারের সাথে সাথে আপনার মোবাইলে নোটিফিকেশনে চলে যায়।